রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধিকার ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে

No voting right in Bangladesh

রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধিকার ছিনিয়ে নেয়া নেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির পরাজিত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু।

বুধবার খুলনা বিএনপি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, আমি নির্বাচনের প্রচারণার সময় যেসব কথা বলেছিলাম তা সত্য প্রমাণিত হয়েছে। এই সরকার ভোট ডাকাতির সরকার। ভোটারবিহীন নির্বাচনের সরকার। এই সরকার যেনতেন প্রকারে জিততে চায়। তারা হারতে চায় না। যা গতকাল খুলনা ও দেশবাসী দেখেছে।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে মঞ্জু বলেন, আপনাদের লেখনীর মাধ্যমে ভোট কারচুপির আরও অনেক তথ্য বেরিয়ে এসেছে। যা গতকাল আমরা জানতাম না। আজকের পত্রপত্রিকার রিপোর্ট পড়ে যা জানতে পেরেছি এটি নতুন একটি সংস্করণ ভোট ডাকাতির।

তিনি আরও বলেন, আমি প্রচারণার শেষ দিনে বলেছিলাম-নির্বাচনে বিজয়ী হতে সরকার নতুন ইলেকশন ইঞ্জিরিয়ারিং করছে। যে কথাগুলো বলেছিলাম সেগুলোই শতভাগ সত্য হয়েছে।

সেইসঙ্গে যুক্ত হয়েছে আরও নতুন কিছু বিষয়। একটি শহরের স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিজয়ী হতে সরকার রাষ্ট্রীয় সকল শক্তি এখানে নিয়োজিত করেছিল। রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধিকারকে ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে। আমি এই কথাগুলো বারবার বলেছি কিন্তু কোনো কাজ হয়নি।

উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে প্রশ্ন রেখে মঞ্জু বলেন, একটি মেয়র নির্বাচনে পরাজিত হলে কী এমন হতো সরকারের?

গতকাল সোমবার খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক ১ লাখ ৭৬ হাজার ৯০২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে জয় লাভ করেছেন। অন্যদিকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে তার প্রধান প্রতিপক্ষ নজরুল ইসলাম মঞ্জু পেয়েছেন ১ লাখ ৮ হাজার ৯৫৬ ভোট।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.