বাড়বে না অ্যালার্জি, ডায়েটও হবে,

41

আপনি হয়তো ডায়েটে আছেন। আর ডায়েট মানেই তো স্বল্প আহারের তালিকা। যেখানে ফল কিংবা সবজিই হবে প্রধান। কিন্তু অনেকেরই আবার অ্যালার্জিজনিত বা চর্মরোগের সমস্যা থাকে। তাও আবার এই ফলমূল কিংবা সামুদ্রিক কোনও মাছ থেকে। এ আরেক বিপত্তি! এই সমস্যার সমাধান হিসেবে বেছে নিতে পারেন নির্দিষ্ট উপাদানযুক্ত কিছু খাবার। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকাটা হোক এসব খাবার দিয়েই।

বাড়বে না অ্যালার্জি, ডায়েটও হবে,

ভিটামিন সি-যুক্ত খাবার
দ্রুত ক্ষত সারাতে কিংবা চর্মরোগ থেকে দূরে রাখতে টক জাতীয় ফল বা সবজি বেছে নিন। ভিটামিন সি জাতীয় ফলমূল বা সবজিতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা আপনার শরীরের কোনও ক্ষত দ্রুত সারানোর পাশাপাশি হিস্টামিন দূর করে দেয়। আর এই হিস্টামিন উপাদানটিই হল অ্যালার্জির মূল কারণ।
ভিটামিন এ সমৃদ্ধ খাবার
ভিতামিন এ জাতীয় খাবার শরীরে অ্যান্টি অ্যালার্জিক প্রতিরোধক ব্যবস্থা গড়ে তোলে। তাই প্রতিদিনের ডায়েটের তালিকায় কয়েকটা আমন্ড, পালং শাক, মিষ্টি আলু, পাম তেল এবং সূর্যমুখীর বীজের তেল রাখতে পারেন।
হওয়া চাই ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ
আমন্ড বা কাজু বাদাম, ডার্ক চকোলেট কিংবা পালং শাকজাতীয় খাবারে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম থাকে। আর ম্যাগনেসিয়ামের অন্যতম কাজই হল শরীরের হিস্টামিন দূর করে দেওয়া।
রোজমেরি অ্যাসিডযুক্ত যেকোনো খাবার
তীব্র সুঘ্রাণযুক্ত রোজমেরি গুল্মের কথাই বলা হচ্ছে এখানে। তবে শুধু রোজমেরি ছাড়াও এর অ্যাসিডযুক্ত অন্যান্য কিছু গুল্ম বা পাতাও আপনি চাইলে রাখতে পারেন খাদ্য তালিকায়। যেমন- অরিগ্যানো, লেমন গ্রাস, পুদিনা পাতা। লিউকোসাইটের জন্যে যে চর্মরোগ দেখা দেয় তা দূর করবে এ জাতীয় গুল্ম বা সুগন্ধি পাতা।
এবং মধু!
প্রতিদিন সকালে দু চা চামচ মধু খাওয়ার অভ্যাস করা প্রয়োজন। আর আপনি যদি হিস্টামিন উপাদানটি ছাড়াই ডায়েট করতে চান তাহলে মধুর বিকল্প নেই। এই দু চা চামচ মধু আপনাকে একই সঙ্গে দেবে ম্যাগনেসিয়াম, ফসফাস, থায়মিন,ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম এবং ভিটামিন ৬।
এছাড়াও…
এছাড়াও ফলমূল আর সবজি তো থাকছেই। অল্প তেলে রান্না করা সবজি যেমন টমেটো, গাজর বা করলা ভাজি থাকতে পারে এ তালিকায়।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.